Ads
কামরুল হাসান রুবেলঃ
সাভারের আশুলিয়ায় পৃথক অভিযান চালিয়ে মোবাইল চোর চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে সিপিসি-২ ও র‍্যাব-৪ । তাদের কাছ থেকে ৬৮টি চোরাই মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। চোর চক্রের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে পথচারী কাছ থেকে মোবাইল ছিনতাই ও বিক্রি করে আসছে।
শনিবার আশুলিয়া জামগড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোবাইল চোর সিন্ডিকেটের ৪ সদস্যকে আটক করে র‍্যাব-৪। আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার

জমীর উদ্দীন আহমেদ(কোম্পানি কমান্ডার)।
তিনি জানান,  আশুলিয়া জামগড়া এলাকায় চোর চক্রের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে  পথচারী কাছ থেকে মোবাইল ছিনতাই ও বিক্রি করে আসছে। চক্রের ওই ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করে। তাদের মধ্যে রয়েছেন-১) মোঃ আবুল কালাম  (৪৯), পিতা মৃত হাকিম,সাং -টুংগীপাড়া, থানা- টুংগীপাড়া, জেলা- গোপালগঞ্জ।২) মহসিন আলী (৫০)পিতা- আমির উদ্দিন প্রমানিক, সাং-চকশোব,থানা-লালপুর,জেলা নাটোর।৩) মোঃ সোহেল রানা (২৪),পিতাঃ মোঃ মুতাসিম বিল্লাহ,সাং-বাকতা,থানা-ভোলা, জেলা-ভোলা।৪)মোঃসুুজন(২৪), পিতা-মৃত জায়েদ উদ্দিন হাওলাদার, সাং-আমতলী, থানা- আমতলী, জেলা-বরগুুুনা।
তিনি বলেন, বিভিন্ন অপরাধী হত্যাসহ ছিনতাই, ডাকাতি করে মোবাইল নিয়ে গেলেও পূর্বে তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহজেই অপরাধীদের শনাক্ত করতে পারতো। কিন্তু সংঘবদ্ধ এই চক্রটি মোবাইলফোনের আইএমইআই পরিবর্তন করার কারণে চাঞ্চল্যকর মামলার রহস্য উদ্ঘাটনসহ প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেফতার করা কঠিন হয়ে পড়েছে।
গ্রেফতারদের জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে তিনি বলেন, পথচারী কাছ থেকে মোবাইল ছিনতাই ও বিক্রি করাই হচ্ছে তাদের মূল পেশা।
এরপর নির্ধারিত মূল্যের কম মূল্যে মোবাইলগুলো বিক্রি করতো।৬৮ টি বিভিন্ন ব্রান্ডের মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয় তাদের কাছ থেকে।
গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে  ৪১৩/৩৪ ধারায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।এছাড়াও তাদের সাথে জড়িত অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে। এ সকল চোরাই মোবাইল ফোন দিয়ে বিভিন্ন অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এছাড়া নিরীহ লোকদের অপরাধী হিসেবে উপস্থাপন করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here