Ads
কামরুল হাসানঃ
সাভার থেকে অপহরণের পাঁচ দিন পরে আড়াই বছরের এক শিশুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এঘটনায় অপহরণকারী এক দম্পতিকে আটক করেছে পুলিশ। অপহরণের পরে উদ্ধার হওয়া আড়াই বছরের ওই শিশুর নাম আমেনা আক্তার।
পুলিশ বলছে,সাভারের পশিচম ব্যাংকটাউন বাড়ইগ্রাম এলাকায় একটি পোশাক কারখানার শ্রমিক আসাদুল হক ওই এলাকার মোহাম্মদ আলীর বাড়িতে একটি কক্ষ ভাড়া নিয়ে স্ত্রী সন্তান নিয়ে বসবাস করেন। পরে সেই ভাড়া বাড়ির প্রতিবেশী দম্পতি শামছুন নাহার ও তার ¯^ামী আশরাফুল ইসলাম গত ১৪ সেপ্টম্বর আড়াই বছরের শিশু আমেনা আক্তারকে দোকান থেকে চকলেট কিনে দেওয়ার কথা বলে অপহরণ করে নিয়ে যান। পরে অপহরণকারী ওই দম্পতি অপহৃত ওই শিশুর পরিবারের কাছে মুঠোফোনে বিকাশের মাধ্যমে মুক্তিপণ হিসেবে এক লক্ষ টাকা দাবি করেন। টাকা না দিলে শিশুটিকে হত্যা করে লাশ গুম করারও হুমকি দেন তারা। পরে অপহৃত শিশুটির বাবা বিকাশের মাধ্যমে পাঁচ হাজার টাকা পাঠান অপহরণকারীদের কাছে। এসময় অপহরণকারীরা শিশুটিকে মারধর করে কান্নার আওয়াজ মুঠোফোনে ধারণ করে ইমোর মাধ্যমে অপহৃত শিশুটির বাবার কাছে পাঠান। পরে শিশুটির বাবা সাভার মডেল থানায় অপহরণের একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করতে মাঠে নামেন পুলিশ। পরে তাদেরকে পুলিশ গ্রেপ্তার করতে পারে বিষয়টি বুঝতে পেরে গতকাল বিকেলে অপহৃত শিশুটিকে রংপুরের কোতোয়ালী থানা এলাকায় একটি রাস্তার মধ্যে ফেলে রেখে পালিয়ে যান অপহরণকারীরা। এসময় অপহরণকারীরা শিশুটির হাতে তার বাবার মোবাইল নাম্বার লিখে দেন। এসময় শিশুটিকে উদ্ধার করতে গত পাঁচ দিন ধরে রংপুর জেলায় অবস্থান নেন সাভার মডেল থানা পুলিশের একটি দল। ঘন ঘন অপহরণকারীরা স্থান পরিবর্তন করায় শিশুটিকে উদ্ধার করতে পুলিশের একটু বেগ পেতে হয়। পরে গতকাল বিকেলে অপহৃত ওই শিশুকে রংপুরের কোতোয়ালী থানা এলাকা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে গতকাল রাতেই অপহরণকারী দম্পতি শামছুন নাহার ও তার ¯^ামী আশরাফুল ইসলামকে বগুড়ার শিবগঞ্জ এলাকার একটি বাড়ি থেকে আটক করে। পরে অপহৃত শিশুটিকে আজ ভোর রাতে সাভার মডেল থানায় এনে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। পুলিশের হাতে আটত হওয়া অপহরণকারী ওই দম্পতির বাড়ি বগুড়া জেলার শিবগঞ্জ থানার শোলাগাড়ি গ্রামে।
এবিষয়ে সাভার মডেল থানার ওসি তদন্ত সাইফুল ইসলাম বলেন,অপহরণকারী দম্পতির বিরুদ্ধে আজ সকালে সাভার মডেল থানায় মামলা দায়ের করে তাদেরকে দুপুওে আদালতে প্রেরণ করা হবে জানিয়ে তিনি আরও বলেন ওই দম্পতি বিভিন্ন বাড়িতে বাসা ভাড়া নিয়ে শিশুদেরকে অপহরণকরে মুক্তিপণ আদায় করতো বলে জানা গেছে এছাড়া টাকার জন্য শিশুটিকে মারধর করতো বলেও বলেন তিনি।
শিশুটিকে উদ্ধার করায় সাভার মডেল থানা পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে শিশুটির পরিবার।
সাভার-ঢাকা
১৯-০৯-২০

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here